বাংলার সময়‘সিগন্যাল মানেনি তূর্ণার চালক’

নাজমুস সালেহী

fb tw
somoy
১৯৬৫ সালে গড়ে ওঠে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার মন্দবাগ রেলস্টেশন। অর্ধশত বছরের পুরনো যন্ত্রপাতি দিয়েই চলছে এর কার্যক্রম। ট্রাফিক, সিগন্যাল ও অপারেশনে যন্ত্রপাতি এতটাই পুরনো হয়ে গেছে যে, ট্রেন ক্রসিং ও লাইন ক্লিয়ারেন্সে সমস্যায় পড়তে হয় প্রায়ই। দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্টেশনটি ডিজিটালাইজড করার কথা জানিয়েছে রেলওয়ে স্থায়ী কমিটি।
ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট রুটে সব মিলিয়ে অন্তত ৫০টি ট্রেন চলাচল করে এই মিটারগেজ লাইন দিয়ে। সিগন্যাল ও ট্রাফিক ব্যবস্থা অ্যানালগ হওয়ায় মাঝে মাঝেই ট্রেনের ক্রসিং ও পাসিংয়ে সমস্যায় পড়তে হয় যন্ত্রকৌশলীদের।
এই স্টেশনের ক্রসিং পয়েন্টেই দশকের ভয়াবহতম দুর্ঘটনায় ঝরে যায় ১৬টি প্রাণ। সিগন্যাল কক্ষে কথা হয় বর্তমান স্টেশন মাস্টারের সাথে।
উদয়ন এক্সপ্রেসকে ক্রসিং দিতে তূর্ণা নিশীথাকে পরপর তিনটি সিগন্যাল দেয়া হয়। এরপরও থামেনি ট্রেনটি।
পদ্ধতির কারণেই এই লাইনে দুর্ঘটনা বাড়ছে জানিয়ে ডিজিটাল সিগনালিং ব্যবস্থা প্রবর্তনের কথা জানিয়েছেন, রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ।
তিনি বলেন, সিগনালিং সিস্টেম যেটা স্টেশনে দায়িত্বরত স্টেশন মাস্টার যিনি আছেন উনি বললেন, উনারা সিগন্যাল দিয়েছেন। সিগন্যাল দেখাচ্ছে তুমি স্টপ হও। যে চালক সে যদি সিগন্যাল না পায়, ঘুমে থাকে। এমন দুর্ঘটনা যাতে আর না ঘটে তার জন্য অ্যালার্ম সিস্টেমের ব্যবস্থা করতে হবে।    
রেলপথ পরিদর্শকের অধিদপ্তর সিলেট আখাউড়া সেকশনের ১৭৮ কিলোমিটার মিটারগেজ রেলপথ ও ২০০টির মতো রেলসেতুর অধিকাংশই ঝুঁকিপূর্ণ । 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop