বাংলার সময়গুজবে সুনামগঞ্জে লবণ বিক্রির হিড়িক

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
মূল্য বৃদ্ধির গুজব ছড়িয়ে পড়ায় বেশি পরিমাণে লবণ কেনার হিড়িক পড়েছিল সুনামগঞ্জে। সোমাবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম ও লোক মুখে লবণের মূল্য বেড়ে যাওয়ার গুজব রটে। এরপর ভোক্তারা অধিক পরিমাণে লবণ কিনতে শুরু করেন। পাড়া মহল্লার দোকানগুলোতে লবণ বিক্রি বেড়ে যায়।
পৌর এলাকার বাজারের দোকানে লবণ কিনতে লোকজন ভীড় করেন। গভীর রাত পর্যন্ত অনেককে ২ থেকে ৩ কেজি লবণ কিনে বাসায় ফিরতে দেখা যায়। গুজব নিয়ন্ত্রণে পুলিশ প্রশাসন মাঠে নামার পর পরিস্থিতি বদলে যেতে শুরু করে। গুজব নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি বাজার মনিটরিং করে প্রশাসনের কর্মকর্তারা।
গুজবের মাধ্যমে ছড়ানো তথ্য যাচাই-বাছাই ছাড়াই সাধারণ মানুষ লবণের দাম বাড়ার কথাটি বিশ্বাস করে বেশি বেশি লবণ কিনে নেন। স্থানীয় লবণ ডিলার প্রণয় পাল টিটু জানান, লবণ তারা স্বাভাবিক দামে বিক্রি করেছেন। এছাড়া লবণের কোনো ঘাটতি নেই। তিনিও গুজবের খবর শুনেছেন। তবে কোনো কোনো ব্যবসায়ী গ্রামের হাট বাজারে লবণ বেশি দামে বিক্রি করছেন-এমন খবর তিনিও পেয়েছেন।
খুচরা ব্যবসায়ী সজল পাল বলেন, লবণের দাম বেড়েছে-এমন গুজব তিনিও শুনেছেন। তার দোকানে সন্ধ্যার পর থেকে বেশি লবণ বিক্রি হয়েছে। তবে লবণের প্যাকেটের গায়ে যে খুচরা মূল্য লেখা আছে সে দামেই তিনি বিক্রি করেছেন।
জানা যায়, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় ক্রেতারা শঙ্কিত হয়ে পড়েন। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে একটি মহল সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে লবণের দাম বেড়ে গেছে বা যাবে এমন গুজব ছড়িয়ে দেয়। এতে ক্রেতারা বিভিন্ন মুদি দোকানে লবণ কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন।
সুনামগঞ্জের ছাতক, জগন্নাথপুর, তাহিরপুর, দিরাই, সদর উপজেলায় গুজবের কারণে বেশি লবণ বিক্রি হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান।
সুরঞ্জিত দাস নামের এক ক্রেতা ৪ কেজি লবণ কিনেছেন। তার সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, লবণের দাম বেড়ে গেছে। আরও বাড়বে এমন খবর পেয়ে তিনি ৫০ টাকা করে ৪ কেজি লবণ কিনে রেখেছেন।
বিক্রেতা কোনো রশিদ দিয়েছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অনেক মানুষ লাইন ধরে লবণ কিনছে। তারাও কেউ বিক্রয়ের জন্য রশিদ চায়নি তাই তিনিও রশিদ ছাড়াই কিনেছেন। ছাতক গুজব ছড়িয়ে মুনাফা লুটার চেষ্টা করছেন এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী এমন খবর পেয়ে সোমবার রাতে ছাতকে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালায়। সন্ধ্যার পরে লাইন ধরিয়ে অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করে অসাধু ব্যবসায়ীরা।
খুচরা ব্যবসায়ী মোহন দেব জানান, লবণের দাম বাড়ার গুজব ছড়িয়ে পড়ার পর অন্যান্য দিনের চেয়ে আজ বেশি পরিমাণ লবণ বিক্রি হয়েছে। তারা প্যাকেটের গায়ে লিখা নির্ধারিত খুচরা দামে লবণ বিক্রি করেছেন। পরবর্তীতে ছাতক উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাপশ শীল ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে ছাতক পৌর শহরের আলী ট্রেডার্স ও নিতাই স্টোর নামক দুই প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা অধিকার আইন (২০০৯) এর ৪০ ধারায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
এ ব্যাপারে  সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান জানান, গুজব ছড়িয়ে যেন কোনো ব্যবসায়ী বেশি দামে লবণ বিক্রি করতে না পারে সেজন্য পুলিশ তৎপর রয়েছে। গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান তিনি।
জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আহাদ জানান, জেলায় লবণের পর্যাপ্ত যোগান ও সরবরাহ রয়েছে। গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop