আন্তর্জাতিক সময়নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে তিন অভিযোগ অ্যাটর্নি জেনারেলের

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহুকে আনুষ্ঠানিকভাবে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত করেছেন দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল। সরকার গঠন নিয়ে দেশটিতে চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থার মধ্যেই বৃহস্পতিবার নেতানিয়াহুকে দুর্নীতির তিনটি অভিযোগে অভিযুক্ত করা হলো। 
একে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং অভ্যুত্থান চেষ্টা বলে অভিহিত করেছেন নেতানিয়াহু। প্রতিক্রিয়ায় ইসরাইলকে দুর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্র হিসেবে আখ্যা দিয়েছে ফিলিস্তিনিরা।
সংখ্যাগরিষ্ঠতার অভাবে ইরসাইলের রাজনৈতিক দলগুলো যখন সরকার গঠনে ব্যর্থ তখনই, ঘুষ, দুর্নীতি আর বিশ্বাসভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত হলেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহু। 
বুধবার দেশটির সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় কৌসুলী জানান, আইনের শাসন সবার জন্য সমান, প্রধানমন্ত্রীকে অভিযুক্ত কোরে সেই বার্তাই দিয়েছে বিচার বিভাগ।
ইসরাইলের অ্যাটর্নি জেনারেল অভিচাই ম্যানদেলবিলট বলেন, এটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কোনো বিষয় নয়। এখানে কে ডানপন্থি, কে বামপন্থি সেগুলো বিবেচনা করা হয়নি। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী এবং বিচার বিভাগ তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছে।
এ ঘোষণার পরই প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর পক্ষে তার বাসভবন জেরুজালেমের রাস্তায় বিক্ষোভ করেন সমর্থকরা। ডানপন্থি প্রধানমন্ত্রীকে অভিযুক্ত করায় অ্যাটর্নি জেনারেলকে 'বামপন্থী' বলেও আখ্যা দেন তারা।
তারা বলছেন, জনপ্রিয়তার কারণেই প্রতিটি নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। ডানপন্থীরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করলেও, বামরা তার উল্টো। নির্বাচনে বামদের ভরাডুবিই তার প্রমাণ। এখন তাদের কিছু করার নেই। তাই তদন্ত করছে।
তবে, নিজের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেছেন, তাকে ক্ষমতাচ্যুত করতেই সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই অভিযোগ আনা হয়েছে। তদন্ত সত্যের উর্ধ্বে নয় বলেও মন্তব্য করেছেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী।
বিনেয়ামিন নেতানিয়াহু বলেন, ডানপন্থী সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্যই এ তদন্ত। এগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত মিথ্যা অভিযোগ। আমরা মিথ্যাকে কোনভাবেই জয়ী হতে দেবো না। আইন অনুযায়ী আমিই রাষ্ট্র পরিচালনা করে যাবো।
জবাবে, ইসরাইলকে দুর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্র হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন অবরুদ্ধ পশ্চিম তীর ও গাজার ফিলিস্তিনিরা।
তারা বলেন, দখলদারদের নেতারা দুর্নীতি করবে এটা খুবই স্বাভাবিক। তারা ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ কোরে তাদের ভূমি দখল করছে। গণতন্ত্রের নামধারী মিথ্যবাদী রাষ্ট্র ইসরাইল। জবরদখলই তাদের মূলভিত্তি। আন্তর্জাতিক আদালতে এসব যুদ্ধাপরাধীর বিচার হওয়া উচিৎ।
ইসরাইলের ইতিহাসে ক্ষমতাসীন কোন প্রধানমন্ত্রীর দুর্নীতিতে অভিযুক্ত হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম। আর এ অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিন থেকে সর্বোচ্চ ১০ বছরের সাজা হতে পারে নেতানিয়াহুর।
মধ্যপ্রাচ্যের ক্যান্সার বলা হয় ইসরাইলকে। যার প্রত্যক্ষ নির্মমতার শিকার ফিলিস্তিনিরা। গেলো ১০ বছর ধরে এ নৃশংসতায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন ইসরাইলের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী। অভ্যন্তরীণ অপকর্মে অভিযুক্ত হলেও, ইসরাইলের আইন বলছে, দোষী না হওয়া পর্যন্ত ক্ষমতায় বহাল থাকছেন তিনি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop