ksrm

খেলার সময়দেশের আর্চারিকে এগিয়ে নিতে ফেডারেশনের পাশে সিটি গ্রুপ

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
somoy
দেশের আর্চারিকে এগিয়ে নিতে, এবার বাংলাদেশ আর্চারি ফেডারেশনের সঙ্গে যোগ দিলো "সিটি গ্রুপ"। আর্চারি দলের প্রাইম স্পন্সর ও ডেভেলপমেন্ট পার্টনার হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে সিটি গ্রুপের ব্র্যান্ড 'তীর'। ২০২০ অলিম্পিক ও ২০২২ এশিয়ান গেমসে পদক অর্জনের লক্ষ্যে "গো ফর গোল্ড" স্লোগান নিয়ে, প্রাথমিকভাবে ৫ বছরের চুক্তি করেছে তারা। প্রথম বছরে ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেবে প্রতিষ্ঠানটি। এদিকে, বিদেশি কোচ ও ট্রেনিং সেন্টার সহ উন্নত সুযোগ সুবিধার আশ্বাস পেয়ে দারুণ খুশি দেশের আর্চাররাও।
অলিম্পিক। যেকোনো অ্যাথলিটের জন্য এক স্বপ্নের নাম। অংশ নিলেও অন্য সব খেলার মতোই এই মেগা ইভেন্টে আর্চারিতেও কখনোই পদক পায়নি বাংলাদেশ। পদক তো দূরে থাক, বাছাই পর্বের বাঁধা পেরোনোও যেন আকাশ কুসুম কল্পনা। তবে, তীর-ধনুকের নিশানায় বাংলাদেশের আর্চারদের অভয় দিতেই উদ্যোগী হয়েছে সিটি গ্রুপের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড 'তীর'।
আর্চারি ফেডারেশনের সঙ্গে ৫ বছরের চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা সেরেছে প্রতিষ্ঠানটি। ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের আওতায় অন্তত ৬ মাসের জন্য বাংলাদেশ দলের বিদেশি কোচ নিয়োগ দেয়া হবে। আর্চারদের জন্য ফিটনেস সেন্টার ও পুষ্টিকর খাবার সরবরাহে প্রায় ৩০ লাখ টাকা ব্যয় করবে সিটি গ্রুপ। এছাড়া, ১২ জেলায় প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচি ও জাতীয় আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজনে সহায়তা করবে তারা।
সিটি গ্রুপের বিজ্ঞাপন ও বিপণন বিভাগের নির্বাহী পরিচালক শোয়েব মোহাম্মদ আসাদুজ্জামন বলেন, 'দেশের মানুষের অনেক দিনের স্বপ্ন, অলিম্পিকে আর্চারিতে একটা পদক। সিটি গ্রুপ মনে করে, দেশের মানুষের এ স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে আমাদের একটা দায়িত্ব আছে। আমরা চাই অন্তত একশ জনের একটা ইয়ুথ আর্চার পুল তৈরি করতে। যাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে ভবিষ্যতের সেরা আর্চার বের করে আনতে পারবো।'
ভবিষ্যতে আর্চারদের একাডেমিক শিক্ষার ব্যবস্থার উদ্যোগটিও প্রশংসার দাবি রাখে। সেইসঙ্গে, পারফরম্যান্সের বিচারে আর্চারদের জন্য আর্থিক সহায়তা বৃদ্ধি করা হবে। পুরুষদের রিকার্ভে গেমে এ বছরের "টার্গেট স্কোর" ৬৫৫। যেটি ২০২২ সালের মধ্যে ৬৮৫'তে উন্নীত করতে চায় তারা। আর সুযোগ সুবিধা পেলে দারুণ কিছু করতে প্রত্যয়ী রোমান-শ্যামলীরাও।
আর্চার শ্যামলী রায় বলেন, এর আগে আমাদের এতো সুযোগ সুবিধা ছিলো না। স্পন্সর ছিলো না। এখন যে স্পন্সরটি আমরা পেয়েছি তাতে আমরা অনেক উৎসাহিত হয়েছি।'
আর্চার রোমান সানা বলেন, 'এমন স্পন্সর যদি আরো আসে। প্লেয়ারদের যদি আর্থিক সহায়তা করে তবে আমাদের যে লক্ষ্য তা পূরণ করতে পারবো।'
২০২০ অলিম্পিকে পদক ও ২০২২ এশিয়ান গেমসে স্বর্ণ জয়ের লক্ষ্য পূরণে চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত ফেডারেশনও।
ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব উদ্দিন চপল বলেন, 'আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অংশগ্রহণ করেছি ২০০৩ সালের প্রথম। পদক পাওয়া শুরু করেছি ২০০৯ সাল থেকে। ২০১৭ সাল পর্যন্ত আমরা ১২টি স্বর্ণপদক পেয়েছি। আমরা অবশ্যই চেষ্টা করবো কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য।'
এমন প্রতিশ্রুতি নতুন কিছু নয়। তবে, শুধু কিছু বাক্যে আটকে না থেকে, পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় কার্যকরী পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে দৃষ্টান্ত তৈরি করতে পারে আর্চারি ফেডারেশন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop