খেলার সময়কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না বিপিএলকেন্দ্রিক জুয়ার আসর

ওয়েব ডেস্ক

fb tw
কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না দেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিপিএলকে কেন্দ্র করে জুয়ার আসর। পাড়ার অলিগলি থেকে শুরু করে জুয়া ছড়িয়ে পড়ছে অনলাইন মাধ্যমে ঘরে ঘরে। জুয়াকে কেন্দ্র করে ঘটছে সহিংসতাও। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বলছে, তারা ব্যবস্থা নিলেও মূল তদারকির দায়িত্ব বিসিবির।
ক্রিকেটকেন্দ্রিক জুয়াকে কেন্দ্র করে সর্বশেষ ঘটে যাওয়া সহিংসতার অভিযোগ এটি। গেল ৬ই নভেম্বর পাড়ার চায়ের দোকানে বাজি ধরার বিরোধিতা করায় জুয়াড়ুদের হাতে খুন হয় রাজধানীর মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাসিম।
এরপর গেল ১৭ই নভেম্বর মিরপুর স্টেডিয়াম এলাকা থেকে জুয়াড়ু সন্দেহে ৭৭ জনকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয় বিসিবি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তাতেও কমেনি জুয়ার প্রবণতা।
রাজধানীর তালতলার ছোট্ট বাজার। দেখে মনে হবে সারি সারি এসব চায়ের দোকানে বসে মানুষ বিপিএলের খেলা দেখছে। কিন্তু অভিযোগ রয়েছে এসব দোকানেই খেলা দেখার ছলে চলছে বাজি বা জুয়া।
এ অভিযোগের সত্যতা ধরা পড়লো গোপন ক্যামেরায় ধারণ করা এই কথপকথন থেকে।
জুয়া ছড়িয়েছে পাড়ার অলিগলিতে, ছাত্রাবাসে। কখনও দলবেঁধে প্রকাশ্যে আবার কখনও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে জুয়ার অর্থ লেনদেন করা হয়। অভিযোগ রয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বাইরেও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন জুয়াভিত্তিক সাইট অবৈধভাবে হাতিয়ে নিচ্ছে অর্থ।
একজন বলেন, 'জুয়া খেলার নেশা যখন ওঠে বড় ছোট মানা হয় না।'
এমন অবস্থায়, পারস্পারিক দায় চাপাচ্ছে সংস্থাগুলো।
ডিএমপি মুখপাত্র মাকসুদুর রহমান বলেন, 'এই বিষয়গুলো আলোচনায় এসেছে। বিসিবি মূলত এই ব্যাপারগুলোতে নজরদারি রাখছে। অথবা রাখবেন।'
বিপিএল গভনিং কাউন্সিল সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক বলেন, 'আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া আমাদের কোনো অপশন নেই।'
তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, আইনগতভাবেই ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব এসব অপরাধের।
এ বিষয়ে অপরাধবিজ্ঞানী অধ্যাপক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জন বলেন, 'পুলিশ ইচ্ছা করলেই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে। ক্লাব বন্ধ করে দিতে পারে। তবে মুখ্য ভূমিকা নিতে হবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকেই।'
গেলো বছরগুলোতে ক্রিকেট উন্মাদনা এ দেশের সব শ্রেণীর মানুষকে শুধু বিনোদনের খোরাকই জোগায়নি বরং নানা বিভক্তির বিপরীতে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে দৃশ্যমান-অদৃশ্যমান নানা মাধ্যমে যেভাবে ক্রিকেটকেন্দ্রিক জুয়ার আসরগুলো ছড়িয়ে পড়ছে তাতে বিপিএলের মত আসর গুলো কতটা সুনাম ধরে রাখতে পারে সে শঙ্কা থেকেই যায়।
পিএস/

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop