ksrm

খেলার সময়বিপিএল ঘিরে অবাধ টিকেট কালোবাজারি

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
বিপিএলকে ঘিরে অবাধে চলছে টিকিট কালোবাজারি। দর্শকদের অভিযোগ, দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট পাচ্ছেন না তারা। অথচ প্রকাশ্যেই চড়ামুল্যে টিকিট বিক্রি করছেন কিছু অসাধু। এদের কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অনেকেই বিসিবির বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মচারী। বিসিবির অনেক পদস্থ কর্মকর্তা টিকিট কালোবাজারির সঙ্গে জড়িত বলেও জানালেন তারা। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান।
'কাউন্টারে কোনো টিকেট নেই। অথচ কাউন্টার থেকে যখন বের হলাম, বাইরে পাওয়া যাচ্ছে টিকেট। তিনশো টাকার টিকেট বিক্রি হচ্ছে এগারোশ' টাকা।' বলছিলেন এক টিকেট প্রত্যাশী।
অপর একজন বলেন, 'দুইশ টাকার টিকেট এক হাজার, বারশো টাকা চাচ্ছে। পুলিশ বলছে, এক হাজার টাকা হলে টিকেট পাবে।'
এমন অভিযোগ বহু পুরনো। দর্শকদের এমন দীর্ঘ লাইন থাকুক কিংবা নাই থাকুক, স্টেডিয়ামের গ্যালারি জনসমুদ্র হোক কিংবা ফাঁকা থাকুক, ম্যাচের আগে টিকিট বুথে টিকিট থাকবেনা এটিই যেন নিয়ম। আর তাইতো ম্যাচের দিন স্টেডিয়াম এলাকায় কান পাতলেই, টিকিট কালোবাজারির অভিযোগ শোনা যায় হরহামেশাই।
দর্শকদের কালোবাজারির অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেল কিছুক্ষণ পরই। টিকিট বুথের সামনে রোদেপোড়া মানুষদের দীর্ঘ লাইন অথচ হাত বাড়ালেই টিকেট। পুলিশের নাকের ডগায় অনেকে ডেকে ডেকে বিক্রি করছেন টিকিট। বুথে একটির বেশি টিকিট দেয়া হয়না অথচ এদের কাছে পাওয়া যায় ইচ্ছেমতো টিকেট। শুধু গুণতে হবে চড়া মূল্য।
ক্রেতা সেজে এদেরই কয়েকজনের কাছে সময় সংবাদ। জানা গেল, এদের একেকজনের কাছে আছে অন্তত কয়েকশ করে টিকিট। অনেকেই বিসিবির বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মচারী। নাম না জানালেও, বিসিবির পদস্থ কর্মকর্তারা যে তাতে জড়িত সেটি জানা গেল তাদের মুখেই।
এক কালোবাজারির কাছে জানতে চাওয়া হলো, আপনাদের এই টিকেট কে দেয়?
'বিসিবিতে লোক আছ। এলাকার বড় ভাই।' তার সরল স্বীকারোক্তি।
আরেকজনের কাছে জানতে চাওয়া হলো, একজনকে তো এতগুলো টিকেট দিচ্ছে না। আপনি এতগুলো টিকেট কোথায় পেলেন?
তিনি বলেন, 'সেই খবর আপনার নিয়ে লাভ নাই। এত খবর গিয়ে কইবেন সরকাররে, কিল্লাই দুর্নীতি করে। বড় বড় অফিসারগো কইবেন। আমাগো কাছে কইবেন না।'
তবে এসব যখন একেবারে চোখের সামনে ঘটছে, ঠিক তখন যেন চোখ বুজে আছে বিসিবি। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে, বিসিবির বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা জানালেন, এ বিষয়ে নাকি কিছুই জানা নেই তার! অবশ্য প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দিলেন তিনি।
তিনি বলেন, 'আমরা জানি না। কালোবাজারে যাতে টিকেট বিক্রি করতে না পারে এটার জন্য আমরা যথেষ্ট সজাগ থাকি। তারপরেও এটা হতে পারে। আমি বলছি না যে এটা হয়ই নাই। আমাদের কাছে এই ধরণের কোন তথ্য নাই। আমরা যদি জানতাম তবে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতাম।'
শুধু ঢাকা নয়, আশেপাশের জেলাগুলো থেকেও ক্রিকেটপিয়াসুরা ছুটে আসেন খেলা দেখতে। অথচ কিছু অসাধুর কাছে বারবারই হেরে যায় ক্রিকেটের প্রতি তাদের নিখাদ ভালোবাসাটুকু।
/এসএম

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop