ksrm

খেলার সময়অবশেষে ফাইনালে মাশরাফি

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
somoy
আলোচিত দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ব্যাটে-বলে দারুণ পারফর্ম করে ফাইনালে জায়গা করে নিলো রংপুর রাইডার্স। কুমিল্লাকে ৩৬ রানে হারিয়েছে মাশরাফির দল। আগে ব্যাট করে জনসন চার্লস ও ব্র্যান্ডন ম্যাককালামের তাণ্ডবে ৩ উইকেটে ১৯২ রানের বড় সংগ্রহ পায় রংপুর। জবাবে ১৫৬ রানে অলআউট হয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। অনবদ্য সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচ সেরা হয়েছেন জনসন চার্লস।
টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে যাচ্ছে অথচ কথা বলবেনা ম্যককালামের ব্যাট সেটা কি হয়? না সেটা হতে দিলেন না এ কিউই। খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসলেন। জেতালেন দলকে।
ফাইনালে যেতে হলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে টপকাতে হবে রংপুরের দেয়া ১৯৩ রানের পাহাড়। লিটন-তামিমের ব্যাটে উড়ন্ত সূচনা পায় ভিক্টোরিয়ান্স। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে এলবিডব্লিউ'র জোরালো আবেদন রংপুর রাইডার্সের। রিপ্লে না দেখে যে কেউই বলবে রুবেল হোসেনের বলটি সরাসরি স্টাম্পেই লাগতো। কিন্তু ফিল্ড আম্পায়ার সাড়া দেন নি। অবশ্য বিপিএলে বাজে আম্পায়ারিং এই প্রথম হলো না। কিন্তু এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেও এমন সিদ্ধান্ত নিশ্চয়ই কারোর প্রত্যাশিত নয়।
আম্পায়ারের সেই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেন নি তামিম। মারমুখী ভাবে খেলে, ফিরে যান ৩৬ রান করে। এবারের বিপিএলটা ইমরুল হয়তো ভুলেই যেতে চাইবেন। দলের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে হয়েছেন ব্যর্থ। একবার জীবন পাওয়া লিটন দাস চেষ্টা করেছেন আস্কিং রান রেটের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রান তুলতে। ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৯ রান আসলেও তা যথেষ্ট ছিলো না।
মাঝে শোয়েব মালিক ১০ রানে ফিরে গেলে, চাপ এসে পড়ে স্যামুয়েলস ও বাটলারের ওপর। তবে দু'জনই টি টোয়েন্টির পরীক্ষিত যোদ্ধা। তারা যতক্ষণ উইকেটে ছিলেন অসম্ভব সাধনের স্বপ্ন দেখছিলো কুমিল্লা। কিন্তু তাদের ৪১ রানের জুটি ভাঙ্গেন রবি বোপারা। সেখানেই মৃত্যু হয় কুমিল্লার ফাইনালে খেলার স্বপ্ন। বাকি ৫ উইকেট তারা হারিয়েছে ১৯ রানে। বাজে ফিল্ডিং- ক্যাচ মিস করেও, শেষ পর্যন্ত ফাইনালে নাম লিখায় মাশরাফীর দল। গেলো আসর বাদে বিপিএলের প্রতিটি ফাইনালেই খেলার রেকর্ডও গড়লেন নড়াইল এক্সপ্রেস।
এর আগে বৃষ্টির কারণে রোববার যেখানে ম্যাচ বন্ধ হয়, খেলা শুরু এদিন সেখান থেকেই। শুরুতে কিছুটা ধীরলয়ে খেললেও, আগ্রাসী হয়ে উঠতে বেশী সময় নেন নি ম্যাককালাম ও চার্লস।
শেরে বাংলা স্টেডিয়াম গেইল ঝড় দেখেছে কদিন আগেই। এবার শেরে বাংলা স্টেডিয়াম সাক্ষী হলো চার্লস ও ম্যাককালামের রুদ্রমূর্তির।
স্টেডিয়ামের চারপাশে চার-ছক্কার ফোয়ারা ছোটান এই দু'জন। বিপিএল ইতিহাসে দ্বিতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ ১৫১ রানের জুটি গড়েন তারা। ম্যাকক্যালাম ৭৮ রানে ফিরে যান। কিন্তু ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পান চার্লস। তার ১০৩ রানের ইনিংস, রংপুরকে এনে দেয় ১৯২ রানের পুঁজি। যা উত্তরের দলটির প্রথম ফাইনালে নিয়ে যেতে ছিল যথেষ্ট।
/এসএম

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop