ksrm

খেলার সময়ক্রিকেটের সঙ্গে জীবনের বাইশ গজও সামলাও, বিরাটকে আজহারের পরামর্শ

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
somoy
‘বিজলি গিরি, আজহার চমকা’ অর্থাৎ বজ্রপাতে আজহার আলোকিত। ছিয়ানব্বই বিশ্বকাপের সময় এই শ্লোগানটি ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের মুখেমুখে ছিলো। মোহাম্মদ আজহারউদ্দীন এবং তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী সঙ্গীতা বিজলানি-কে নিয়ে তখন দেশটির ক্রিকেট মহল তখন উত্তাল। এরপর গঙ্গায় গড়িয়ে বহু জল। বিজলির আলোতে এখন আর চমকান না আজহার। এতদিন পর নিজের পুরনো সম্পর্ক নিয়ে বেশি কথাও বলতে চান না ভারতের সাবকে অধিনায়ক। তবে কলকাতা ভিত্তিক বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার-এর সঙ্গে সাক্ষাতকারে আজহারউদ্দীন বর্তমান অধিনায়ক কোহলিকে টিপস দিয়েছেন দিল খুলে।
সংবাদ মাধ্যমটির সঙ্গে আজহারের ফোনালাপের চুম্বক অংশ সময় নিউজের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-
ক্রিকেট ও বলিউডের জুটি: দু’টিই সবচেয়ে জনপ্রিয় জগত আমাদের দেশে। তাই বেশির ভাগ লোকের নজর পড়তে বাধ্য। ভেবে দেখুন না, সবচেয়ে বেশি করে লোকে দেখে ক্রিকেট আর সিনেমা। তাই সব সময় অনুসরণ করবেই লোকে। এখন তো আরও নানা মাধ্যম এসে পড়েছে। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইট খুব সক্রিয়। সেখানেও সারাক্ষণ ময়নাতদন্ত চলছে।
তিনি কী ভাবে সামলাতেন: আলাদা কোনও টোটকা ছিল না। একটা জিনিস মাথায় রাখার চেষ্টা করতাম যে, সফল হয়েছি বলেই লোকে খোঁজ নিচ্ছে। মিডিয়া কৌতূহল দেখাচ্ছে। সব সময় হয়তো মাথা ঠান্ডা রাখা সম্ভব হবে না। কিছু কিছু মুহূর্ত থাকেই, যেগুলো একান্তই ব্যক্তিগত রাখতে চায় সকলে। সেই সময়ে কেউ যদি এসে ছবি তোলার জন্য জোরজার করে, রাগ হতে বাধ্য। তবে আমার মনে হয়, নিজেকে ঠান্ডা রাখতে পারলেই ভাল। সেলিব্রিটি হলে এগুলোও সামলাতে হবে।
বিরাট-অনুশকার বিয়ে: আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাতে চাই ওদের। বিয়ের ছবি দেখেছি, খুব সুন্দর লেগেছে। ওদের সুখ, শান্তি কামনা করি এবং প্রার্থনা করি যেন ওরা সদা সুখী থাকে। আরও একটা কথা বলতে চাই যে, ওরা নিজেদের জগতে খুবই সফল দুই ব্যক্তি। প্রার্থনা করি, ওরা যেন আরও সাফল্য পায়।
পেশায় চাপ আসে কি না: নতুন করে কী আর চাপ আসবে? ইতিমধ্যেই তো ওরা অনেক চাপ সামলে নিয়েছে। শুধুমাত্র দু’টো বিখ্যাত ব্যক্তি বিয়ে করেছে বলে তাদের নিজেদের পেশায় চাপ আরও বেড়ে যাবে, সেটা আমি মানতে নারাজ। এই যে বিরাট-অনুশকার বিয়ে নিয়ে সারা দেশে এত মাতামাতি হচ্ছে, সেটা ওরাও খুব ভাল করে জানে, কেন হচ্ছে। কারণ, ওরা দু’জনে খুব সফল ব্যক্তিত্ব। মিডিয়া এবং মানুষের কৌতূহলের কেন্দ্রে ওরা আগেও থেকেছে। হয়তো বিয়ের সময় সেই আকর্ষণের মাত্রাটা আরও বেড়ে গিয়েছে। এটা নতুন কোনও অভিজ্ঞতা নয় ওদের কাছে। আমি নিশ্চিত, এই কোলাহল সামলে ওরা  সফল ভাবে এগিয়ে যাবে।
বিরাটকে প্রাক্তন অধিনায়কের টিপস: আমার টিপস দেওয়া লাগবে কি? মনে হয় না। বিরাটকে দেখে বেশ পরিণতই মনে হচ্ছে এখন। মাঠে দাঁড়িয়ে কত কঠিন পরিস্থিতি একার হাতে সামলাচ্ছে। আমি নিশ্চিত, জনতার এই বেড়ে যাওয়া আগ্রহটাও ও ঠিকঠাক ভাবে সামলাবে। আমি শুধু একটাই কথা বলব, সব দিকে ভারসাম্য রাখার দিকে নজর দাও। ক্রিকেট মাঠ যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনই বা তার চেয়েও হয়তো বেশি গুরুত্বপূর্ণ জীবনের বাইশ গজ। দু’টো দিকই সামলাতে হবে। কোনওটাকে হেলাফেলা করা যাবে না।
ক্রিকেট না সংসার, কোনটা কঠিন: কোনও তুলনাই চলে না (হাসি)। সংসার অনেক কঠিন। ক্রিকেট মাঠের চ্যালেঞ্জগুলোকে বিরাটের খুব ছোটখাটো মনে হতে পারে এখন (হাসি)। সংসারের ইনিংসটা অনেক ধরে-ধরে খেলতে হয়। আসলে আমরা তো তরুণ বয়স থেকে বাইরে বাইরেই থাকি ক্রিকেট খেলার জন্য। ঘরে সময় দেওয়ার ব্যাপারটা হয়ই না। বিয়ের পরে সেটা করলে চলবে না। দু’টো জগতের মধ্যে ভারসাম্য রেখে চলতে হয়। তবে ওই যে বললাম, আমি পুরোপুরি নিশ্চিত ওরা সেটা জানে এবং করেও দেখাবে। আমি শুধু বলব, খুব সুন্দর একটা ‘কাপল’ তোমরা। অনেক শুভেচ্ছা রইল।
/এসএম

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop